1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৯:২৯ পূর্বাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ
সবাইকে কপোতাক্ষ নিউজ এর পক্ষ থেকে ঈদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। ঈদ মোবারক /// কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

জমি জবর দখলে বেপরোয়া কুল্যার কালু

রিপোর্টার
  • আপডেটঃ শুক্রবার, ১৩ মে, ২০২২
  • ২০ বার পড়া হয়েছে

আহসান উল্লাহ বাবলু, আশাশুনি সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ: আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের কুল্যা গ্ৰামের মৃত বরকতুল্লাহ সাহাজীর ছেলে নূর ইসলাম সাহাজী ওরফে কালুর বিরুদ্ধে জমি জবর দখলে বেপরোয়া হয়ে উঠার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে ভুক্তভোগী একই গ্ৰামের একব্বার সাহাজীর ছেলে হাবিল সাহাজী বাদি হয়ে সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার বরাবার শান্তি পূর্ণ ভোগদখলীয় ভিটা বাড়ির সম্পত্তি জবর দখলের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার নিমিত্তে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, কুল্যা গ্ৰামের মৃত বরকতুল্লাহ সাহাজীর ছেলে নূর ইসলাম সাহাজী ওরফে কালু এবং মোকাম সাহাজী দীর্ঘ দিন থেকে তার সৎ চাচা হাবিল সাহাজীর ভিটা বাড়ির সম্পত্তি জবর দখল করার পাঁয়তারা করে আসছিলো। এরই ধারা বাহিকতায় বিগত কয়েক দিন থেকে তারা জমি জবর দখল করে সেখানে ঘর নির্মাণের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। পুলিশ সুপার বরাবার লিখিত অভিযোগ সূত্রে এবং জমির কাগজপত্রাদি পর্যালোচনায় দেখা গেছে, তফসিল সম্পত্তি আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউনিয়নের কুল্যা বেনাডাঙ্গা মৌজার বি আর এস খতিয়ান নং ৫৭৬ এ জমির পরিমাণ ১.৬৭ একর এর মধ্যে হাবিল সাহাজীর অংশ ৮৫৬, মনিরুদ্দীন সাহাজীর অংশ ৪৮ এবং শন্তু সাহাজীর অংশ ৯৬। প্রকাশ থাকে যে মনিরুদ্দীন সাহাজী ও শন্তু সাহাজীর অংশ সোলে মিমাংসা পূর্বক উক্ত খতিয়ানের ১.৬৭ একর সম্পত্তি হাবিল সাহাজী মালিকানা প্রাপ্ত হন। অপর দিকে খারিজ খতিয়ান নং ৯৯১ এর একক মালিকানায় ১৬ আনা অংশ হিসেবে উক্ত খতিয়ানের ৮ শতক জমির মালিক হাবিল সাহাজীর স্ত্রী শাহিদা খাতুন।

অর্থাৎ সর্বমোট ১.৭৫ একর সম্পত্তি সরকারের খাজনাদি পরিশোধান্তে ঘেরা বেড়া দিয়ে বসতঘর বেঁধে ফলফলাদির গাছ লাগিয়ে পুত্র পরিজন নিয়ে শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোগ দখলে আছেন হাবিল সাহাজী। অভিযোগ সূত্রে এবং কাগজ পত্র পর্যালোচনায় আরও জানা গেছে, উল্লেখিত খতিয়ান দ্বয়ের মধ্যে অভিযুক্ত নূর ইসলাম সাহাজী ওরফে কালু সাহাজী এবং মোকাম সাহাজী দ্বয়ের কোন অংশ নেই।
সরেজমিন ঘুরে ভুক্তভোগী হাবিল সাহাজীর ও স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কালু সাহাজী কর্তৃক অন্যের জমি জবরদখল ও পরবর্তিতে অন্যাত্র বিক্রি করে দেয়া তার প্রতিদিনের কাজের একটি অংশ। অভিযোগ আছে পূর্বে কালু নালিশি সম্পত্তির পাশ্ববর্তী একটি খাস জমি জবরদখল করে প্লট আকারে একাধিক ব্যাক্তির কাছে বিক্রি করে দেন। কালু সাহাজী দুর্দান্ত প্রকৃতির হওয়ার সে গ্ৰামের গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এমনকি প্রশাসনের বিচারিক সিদ্ধান্ত মানেন না।
এবিষয়ে জানতে কালু সাহাজীর মুঠোফোনে কথা হলে তিনি প্রতিবেদককে জানান, সর্ব শেষ রেকর্ড অনুযায়ী নালিশি খতিয়ান ৫৭৬ এবং ৯৯১ এ নূর ইসলাম ওরফে কালু সাহাজী গংদের সম্পত্তির পরিমাণ ১২ শতক। ১২ শতক সম্পত্তির স্থানে ১৫ শতক রেকর্ড এবং অতিরিক্ত সম্পত্তি দখলের চেষ্টা কেন ? এমন প্রশ্নের জবাবে কালু একাধিক মামলা নং বলে বিষয়টি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন।
এবিষয়ে আশাশুনি থানা অফিসার ইনচার্জ প্রতিবেদককে জানান, হাবিল সাহাজী সাতক্ষীরা জেলা পুলিশ সুপার বরাবার লিখিত অভিযোগ দায়ের করলে মাননিয় পুলিশ সুপার মহোদয় ওসি আশাশুনি থানাকে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্ৰহনে নির্দেশ দিয়েছেন। স্যারের নির্দেশ মোতাবেক কাজ করার চেষ্টা করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০-২২ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন