1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
মঙ্গলবার, ২৮ জুন ২০২২, ০৬:৫৮ অপরাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ
 কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

গোপালপুরে প্রধান শিক্ষক ফাইল পত্র নিয়ে উধাও

রিপোর্টার
  • আপডেটঃ বৃহস্পতিবার, ২ জুন, ২০২২
  • ১৯ বার পড়া হয়েছে

মুশফিকুর রহমান ইমন, টাঙ্গাইল প্রতিনিধিঃ স্কুলের জরুরি ফাইলপত্র নিয়ে প্রধান শিক্ষক লাপাত্তা হওয়ায় স্কুলের যাবতীয় কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি গঠন নিয়েও দেখা দিয়েছে অনিশ্চয়তা।

টাঙ্গাইলের গোপালপুর থানায় দায়ের করা অভিযোগে বলা হয়, উপজেলার ঝাওয়াইল ইউনিয়নের কাহেতা উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন করার জন্য গত ২৩ মে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। পরদিন গোপালপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে সভাপতিসহ কার্যকরী কমিটি গঠনের জন্য এক সভা ডাকা হয়।কিন্তু প্রধান শিক্ষক মানিক উদ্দীন ওই সভায় যোগদানের নামে সব ফাইলপত্র স্কুল হতে গুছিয়ে নিয়ে লাপাত্তা হয়ে যান। তিনি আর ওই মিটিংয়ে হাজির না হওয়ায় সভাপতিসহ নতুন কমিটি গঠন করা যায়নি। তার ফোনটি বন্ধ থাকায় তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। এক সপ্তাহ ধরে তিনি স্কুলে বিনা অনুমতিতে অনুপস্থিত রয়েছেন।

স্কুলের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য এবং ঝাওয়াইল ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান খায়রুল ইসলাম জানান, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে নানা অনৈতিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগ রয়েছে। নতুন কমিটি গঠিত হলে এসবের তদন্ত হবে, শাস্তি হবে- এ আশঙ্কা থেকেই তিনি সব ফাইলপত্র নিয়ে গাঢাকা দিয়েছেন।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজনীন সুলতানা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, নির্বাচনের ৭ দিনের মধ্যে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ অন্যান্য কর্মকর্তা পদে নতুন কমিটি গঠন করার নিয়ম। কিন্তু ফাইলপত্রসহ প্রধান শিক্ষক লাপাত্তা হওয়ায় নতুন কমিটি গঠন অনিশ্চিত হয়ে গেছে। এখন অ্যাডহক কমিটি ছাড়া গত্যন্তর নেই।ফোন বন্ধ থাকায় তার বাড়িতে সরাসরি যোগাযোগ করলে তার পরিবারের সদস্যরা জানান, তিনি অসুস্থ। চিকিৎসা নিতে ঢাকায় গিয়েছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০-২২ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন