1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৮:১৩ অপরাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ
সবাইকে কপোতাক্ষ নিউজ এর পক্ষ থেকে ঈদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। ঈদ মোবারক /// কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

নওগাঁয় কাঁচা মরিচের বাজারে আগুন বিপাকে সাধারণ ক্রেতা

মোঃ ফিরোজ হোসাইন,রাজশাহী ব্যুরো
  • আপডেটঃ শনিবার, ৭ আগস্ট, ২০২১
  • ৩৪১ বার পড়া হয়েছে
নওগাঁর আত্রাই উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজারে ১০-১৫ দিন আগেও ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি দামে কাঁচা মরিচ বিক্রি হয়েছিল। বর্তমানে সেই কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ২০০ টাকা কেজি। মরিচের পাশাপাশি দাম বেড়েছে অন্যান্য সবজিরও।
শনিবার ( ৭ আগষ্ট) আত্রাইয়ের বান্দাইখাড়া হাট এন্ড বাজারে  এক দোকান মরিচ বিক্রি করতে আসা কৃষক ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শ্রাবণ মাসের শুরু থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির কারণে উপজেলার অনেক এলাকার সবজি খেত নষ্ট হয়েগেছে।
এ ছাড়া অনেক সবজি খেতের মাটি স্যাঁতসেঁতে হয়ে যাওয়ায় মরিচসহ বিভিন্ন সবজি গাছের ক্ষতি হয়েছে। এ কারণে বাজারে চাহিদার তুলনায় মরিচ, কাকরোল, ঢ্যাঁড়সসহ বিভিন্ন সবজির সরবরাহ কমে গেছে। এ কারণে মরিচসহ অনেক ধরনের সবজির দাম বেড়েছে।
আত্রাই উপজেলার বিভিন্ন কাঁচাবাজারের ক্রেতা-বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ১০-১২ দিন আগেও প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ৩০ থেকে ৪০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। কিন্তু এখন বিক্রেতারা প্রতি কেজি কাঁচা মরিচের দাম চাইছেন ১৬০  থেকে ২০০ টাকা।
আকাশচুম্বী দাম শুনে বিব্রতায় জড়িয়ে পড়ছেন ক্রেতারা। মরিচের পাশাপাশি দাম বেড়েছেঅন্যান্য সবজিরও। ১০-১২ দিনের ব্যবধানে প্রতি কেজি ঢ্যাঁড়স, বেগুন, কাকরোলসহ বিভিন্ন সবজির দাম ১০ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে।
উপজেলার বান্দাইখাড়া হাট এন্ড বাজারে কাঁচা বাজারের ব্যবসায়ী মো. আব্দু কাদের সরদার ও আব্দুস শুকুর  জানান, গুঁড়ি গুঁড়িবৃষ্টির কারণে নিচু এলাকার সবজি খেত গুলোর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। দুই সপ্তাহ আগে মরিচ যে দাম ছিল বর্তমানে সেই মরিচ প্রায় তিন গুণ দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। কারণ মরিচের সরবরাহ অনেক কমে গেছে। আগে প্রতিদিন বাজারে যেখানে ১৫ থেকে ২০ মণ মরিচের আমদানি হতো, এখন সেখানে ৫ থেকে ৭ মণ মরিচের আমদানি হচ্ছে। শুধু মরিচ নয় অনেক সবজি সরবরাহ কমে গেছে।আর লকডাউনের কারণে দুরের এলাকা থেকে কোন কাঁচা সবজি না আসায় আরো দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে একজন ক্রেতা আগে যেখানে আধা কেজিমরিচ কিনতো এখন সেখানে ২৫০ গ্রাম করে মরিচ কিনতে হিমশিম খাচ্ছে।এ অবস্থায় বিপাকে পড়তে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাদের।
হঠাৎ করে কাঁচা মরিচের দাম বাড়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে উপজেলার আহসানগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা মো.শরিফুল ইসলাম বলেন, বর্ষার কারণে গাছ নষ্ট হইছে বলে বাজারে কাঁচা মরিচের সরবরাহ কমে গেছে,আর লকডাউনের কারণে ব্যবসায়ীরা দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতো এখনো তৈরি হয়নি যে বাজারে মরিচ পাওয়া যাচ্ছে না। চাহিদা হিসেবে সরবরাহ ঠিক আছে। তারপরেও ব্যবসায়ীরা কারসাজি করে দাম বাড়িয়ে দিয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। উপজেলার দমদমা গ্রামের ভ্যানগাড়ী চালক,সাজেদুল ইসলাম জানান,দেশে করোনা মহামারি, চলছে ,কেউ তেমন বের হচ্ছে না গাড়ী নিয়ে বের হলে প্রশাসনের ভয়, যাত্রী ও তেমন নেই। ইনকাম নেই বললেই চলে আজ কাঁচা মরিচের দাম ১৬০ টাকা কেজি।এমন করে সব জিনিসের দাম যদি বাড়তে থাকে তাহলে আমাদের না খেয়ে মরতে হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০-২২ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন