1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৩৭ অপরাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ
কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

ময়মনসিংহের বাঘাডোবায় মাওলানা আব্দুল হাকিমের করা প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

আশিকুজ্জামান মিজান ময়মনসিংহ প্রতিনিধি
  • আপডেটের সময়ঃ রবিবার, ৮ আগস্ট, ২০২১
  • ১১৩ বার পড়া হয়েছে

ময়মনসিংহ সদর উপজেলায় এক মসজিদের ইমাম ও মাদরাসার মুহতামিমকে বাড়িঘর থেকে উচ্ছেদ ও হত্যার হুমকি শিরোনামে গত ০১ আগস্ট ২০২১ খ্রিঃ রবিবার দৈনিক আজকের ময়মনসিংহ পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদ এর প্রতিবাদ প্রদান করেন এমদাদুল ও তাঁর পরিবারের লোকজন।

ভুক্তভোগী এমদাদুল বলেন, মাওলানা আব্দুল হাকিমকে আমার বাব দাদাগণ পালক হিসাবে লালন পালন করে বড় করলো। সে আমাদের কোন আত্মীয় স্বজন না। তাঁর এলাকাও এটা না। সে যে জায়গা জমিতে বাড়িঘর তৈর করে বসবাস করছে এটাও আমাদের। জোর জবরদখল করে আমাদের জায়গা জমি ভোগদখল করে আছে। কোন কিছু বলতে গেলে সাংবাদিক ও মামলা হামলার ভয় দেখানোই হলো তাঁর কাজ।

আমি একজন মূর্খ সাধারণ মানুষ, স্থানীয় বাজারে ছোটখাটো একটা হোটেল চালায়। স্ত্রী পঙ্গু এমতাবস্থায় কোন রকম স্ত্রী সন্তান নিয়ে দিন যাপন করছি। সে একটি পত্রিকায় আমাকে সন্ত্রাসী বলে উল্লেখ করে এলাকায় আমার সম্মান নষ্ট করতে চাচ্ছে। কিছু দিন আগে স্থানীয় ভাবে গণ্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ গণকে নিয়ে গ্রাম্য শালিসি একটা বৈঠক হয়। এতে তাঁর সমস্ত কাগজপত্র ভুয়া ও জাল দলিল হিসাবে চিহ্নিত হয়েছে।

তাই সে কোন উপায় খুঁজে না পেয়ে জবরদখলকৃত আমাদের জায়গা জমি হজম করতে মিথ্যা বানোয়াট সংবাদ ও মামলা করেছে। এ ঘটনার পেক্ষিতে এমদাদুল ও মোশাররফ হোসেন মন্নাছ মিয়া সাংবাদিকগণকে জানালে, সাংবাদিকগণ সরেজমিনে উপস্থিত হয়ে এলাকাবাসীর নিকট জানতে চাইলে মাওলানা আব্দুল হাকিম একজন প্রতারক, মিথ্যাচারী, মেয়ে কেলেঙ্কারি ছাড়াও এতিমদের নামে টাকা পয়সা উঠিয়ে নিজে খায় বলেও জানা গেছে।

প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে যে মাওলানা আব্দুল হাকিম টাঙ্গাইলের কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম ও মাদরাসার মুহতামিম বলে উল্লেখ করা হয়েছে এটাও ভুয়া ও মিথ্যা সে টাঙ্গাইলের এই মসজিদে ও মাদরাসার ইমাম বা মুহতামিম নন বলে জানা যায়। এরকম মিথ্যা বহু অভিযোগ খুঁজে পাওয়া যায় তাঁর নামে।

মাওলানা আব্দুল হাকিম এর অপকর্ম এর কিছু চিত্র নিম্নোক্ত তুলে ধরা হলো, জাল দলিল, জমি দেখিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে অর্থ অাদায় করে আত্মসাৎ, অন্যায়ভাবে অন্যের জমিতে অবৈধভাবে বসবাস, একে অপরের সাথে কোন্দল সৃষ্টির চেষ্টা, সমাজের ও গুষ্ঠির লোকদের মধ্যে কলহ বাধানো চেষ্টা ছাড়াও একে অপরের সাথে উস্কানি দিয়ে ঝগড়া বাধাঁনো। মেয়েদের দিয়ে এতিম বলে কালেকশন করানো ছাড়াও নৈতিক চরিত্রের প্রশ্নে তার অবস্থান লজ্জাজনক।

এমনকি মাওলানা আব্দুল হাকিম নিজের চাচিকে মারধর করে হাসপাতালে পাঠিয়েছে, অপরের ক্ষতি সাধনের উদ্দেশ্যে মাছ চাষের অযোগ্য পুকুরকে জিইয়ে রাখা, এমনকি টাঙ্গাইল উলামা পরিষদের সংগঠন থেকে বহিষ্কার, দাওতুল হক থেকে বহিষ্কার, তার মিথ্যা দাবীকৃত মহিলা মাদ্রাসা থেকেও বহিষ্কার। এমনকি টাঙ্গাইলে তাঁর নামে জঙ্গি সন্দেহে মামলাও হয়েছিল। ঘটনাটি ঘটে ময়মনসিংহ সদর উপজেলার ৪নং পরাণগঞ্জ ইউনিয়নের বাঘাডোবা গ্রামে।

সত্যতা যাচাই করতে মাওলানা আব্দুল হাকিম এর সাথে একাধিক বার ফোন করা হলেও ফোন রিসিভ করেনি। এমনকি তাঁর বাসায় গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তাঁর মেয়ে বললো আব্বু বাসায় নেই। তাঁর স্ত্রীর কাছে জানতে চাইলে বললো কিছুক্ষণ হলো বেড়িয়ে গেল। বললাম ফোন সাথে নেই নি। বললো ফোন সাথে আছে ফোনে কথা বলেন। এলাকার ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা বললো ঘরে আছে আপনরা বিতরে ঢুকেন অবশ্যই ঘরের বিতর আছে।

এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল বলেন, মাওলানা আব্দুল হাকিম একটা মিথ্যাবাদী সে এমদাদ ও মন্নাছ বিষয়ে পত্রিকায় যা প্রকাশ করেছে তা আদৌও সত্য নয়। সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০২১ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন