1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ১১:৪৮ পূর্বাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ
 কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬ ## ঝিকরগাছা উপজেলার ভিতর ইংরেজি টিউটর দিচ্ছি, যোগাযোগঃ ০১৯১৮ ৪০৮৮৬৩,mohsinlectu@gmail.com 

তরুন-তরুনীদের অর্থের প্রলোভন দেখিয়ে ৩০০ কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা বিডিলাইক নামে একটি কোম্পানি

রিপোর্টার
  • আপডেটঃ বৃহস্পতিবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৪৮৭ বার পড়া হয়েছে
কৃষ্ণ সরকার পীযূষ, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধিঃ করোনা মহামারির সময়ে যুবক-যুবতীরা ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিভিন্ন অনলাইন ব্যবসায় জড়িয়ে পড়েন।কেউ হাজার টাকা দিয়ে এসব ব্যবসা শুরু করেন। আর কেউবা লাখ লাখ টাকা নিয়ে এসব ব্যবসায় নেমেছেন। তবে ইন্টারনেটভিত্তিক সাইবার জগৎ এখন অপরাধের আখড়া। এমন কোনো অপরাধ নেই যা এই জগতে ঘটছে না। বিশেষ করে বহুল ব্যবহৃত ফেসবুক ও ইউটিউব কেন্দ্রিক নানা অপরাধ-প্রতারণা ঘটে চলছে অহরহ। সামান্য অসাবধানতার কারণে এর ব্যবহারকারী প্রতারক চক্রের ফাঁদে পড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।
এমনই একটি অনলাইন অ্যাপ হচ্ছে বিডি লাইক। এই অ্যাপের মাধ্যমে টাকা ইনভেস্ট করে সহজে টাকা আয় করা যায় বলে মানুষকে লোভ দেখিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে কয়েক শত কোটি টাকা টাকা।
সম্প্রতি বাংলাদেশের বিভিন্ন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) ও জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের বরাবর একটি প্রতারাণার অভিযোগ করেছেন কয়েক লক্ষ বিডি লাইক ব্যবহারকারী ভুক্তভোগী।অভিযোগে ভুক্তভোগীরা উল্লেখ করেন, বিগত ছয় মাস ধরে
Site identity:
Domain :     bdlike.org
Register Domain Id: D402200000016543689-LROR
Registere WHOIS server: whois.namecheap.com
Registere URL: http://www.namecheap.com
Registere : Namecheap.Inc
Registere INNA ID : 1068
Register Abuse contract Email : abuse@namecheap.com
 নামক কোম্পানি বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রতারিত করে বিকাশ,নগদ,রকেট নাম্বার ব্যবহার করে জন সাধারনের নিকট হতে প্রতারণা করে প্রায় ৩০০ কোটি ৮৬ লক্ষর বেশি টাকা নিয়ে গেছে। বর্তমানে ওই প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের খুজে পাওয়া যাচ্ছে না। তাছাড়া সংশ্লিষ্টদের ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।
এই বিষয় নিয়ে পরশ নামে একজন ভুক্তভোগী দৈনিক কপোতাক্ষ নিউজকে জানান, “আমি ব্রাক্ষণবাড়িয়াতে থাকি, কয়েক মাস আগে ইউটিউবে বিডি লাইক অ্যাপে কম টাকা ইনভেস্ট করে ঘরে বসে আয় করার কথা জানতে পারি। বিভিন্ন এলাকার বেশ কিছু মানুষ এই অ্যাপ ব্যবহার করে টাকা আয় করেছিল। পরে বিনিয়োগের টাকা তুলে আবার টাকা বিনিয়োগ করে। তাদের দেখাদেখি আমিও আমার ১০ লক্ষ টাকা ইনভেস্ট করি। কিন্তু কার কিছুদিন পরেই বিভিন্ন টালবাহনা দেখিয়ে কোম্পানি চলে যায়৷ এখন আমি খুব অসহায়ভাবে দিনযাপন করছি, আমাদের কথা শুনার মতো কেই নাই। অন্যের দেখাদেখি বাংলাদেশের অনেক বেকার যুবক বা ছাএছাএীরা তাদের পরিবার থেকে চাপ দিয়ে টাকা নিয়ে, কেউ গরু বিক্রি করে, কেউ লোন নিয়ে, কারো বা সুদের টাকা, আত্মীয় স্বজনদের থেকে নেওয়া ধার দেনার টাকা নিয়ে বিডি লাইক নামক এপস এ তাদের এক তারা লক্ষ লক্ষ মানুষ  অনিশ্চয়তা।এই অ্যাপ এর কাজ সম্পর্কে জানা যায়  যে ২ হাজার টাকার একাউন্টে প্রতিদিন কয়েকটি ভিডিও দেওয়া হতো। সেই ভিডিও দেখে স্ক্রিনশট তুলে গ্রুপে দিলে সাথে সাথে বিনিয়োগকারীর একাউন্ডে ৩৬ টাকা করে জমা হতো। বিনিয়োগের কয়েকটি সিস্টেম রয়েছে। তারমধ্যে সিলবার, প্লাটিনাম, গোল্ড, ডায়মন্ড ও মাস্টার। যারা বড় বড় মেম্বারশিপ নিত তাদের ডেইলি ইনকামের  টাকার পরিমান থাকতো বেশি।তারা বলেছিল যে যার টিমে রেফার করে বেশি  মেম্বার নিতে পারে তাদের জন্য কমিশন বা পরবর্তীতে তাদের বিডি লাইক এজেন্ট বানানো হবে, তাদের মন ভুলানো কথায় আমরা কাজ করে আজ বিডি লাইকের যারা সত্যি কারের প্রতারক তাদের বাদ দিয়ে হয়রানির বিভিন্ন হুমকির শিকার হতে হচ্ছে টিম লিডারদের, প্রতারকরা টিম লিডারদের লোভ দেখিয়ে ইংল্যান্ড নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বলে যার টিমে বেশি মেম্বার থাকবে তারা তার সাথে কল বা ভয়েসের মাধ্যমে সবার সাথে যোগাযোগ করতে বলতো। আবারর কাউকে নিয়ে হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ বানিয়ে সেগুলোতে ভয়েস দিয়ে ফরওয়ার্ড করতে বলত, তারা যা বলেছিল টিম লিডার ছাড়াও অনেকেই এসব মেসেজ একত্রে শেয়ার করে সকল মেম্বারদের কান পর্যন্ত পৌঁছে দিয়েছিল। কিছু টাকা পাওয়ার লোভে সবাই যার যার রেফারে মানুষ যখন এসব নিয়ে ব্যস্ত মানুষ জমানো বা মেম্বার বাড়ানো নিয়ে, ঠিক তখনি তারা প্রথমে সবাইকে কাজের মাধ্যমে টাকা দিয়ে থাকলেও গত ১ মাস যাবত তারা সার্ভারে সমস্যা এপস আপডেট হচ্ছে এসব তালবাহানা করছিল সবাইকে ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করতে অনুরোধ মূলক মেসেজ ভয়েস দিতে থাকে, সকালে একটা দুপুরে একটা আবার রাতে একটা কথার সাথে মিল পাওয়া যেত না, এমন করে একটা না একটা কিছু বলে সবাইকে অপেক্ষা করতে বলে, গত ২৪ আগস্ট তারা সম্পূর্ণ ভাবে টিম লিডার বা যাদের কাছে তাদের নাম্বার গুলো ছিল যোগাযোগ করতে  USA & UK থাকে বলে দাবি করা নাম্বার গুলো থেকে সম্পূর্ণ ভাবে যোগাযোগ বিছিন্ন করে দেয়, দুশ্চিন্তায় পরে যায় সবাই, কেউ কেউ সর্বহারা হয়ে ফেমিলির কাছে বলতে না পেরে, ঋণের টাকার জন্য চাপে পরে আআত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে।”
জানা যায় একই অভিযোগে বাংলাদেশের বিভিন্ন থানায় জিডি করেছেন ভুক্তভোগীরা।
অভিযোগ পত্রে তারা আরও বলেন, শিক্ষিত বেকার যুবক, আমরা টাকা আয় করার আশা নিয়ে এই কোম্পানিতে কাজ করি। আমরা কেউ জানতাম না এই কোম্পানি প্রতারণার আশ্রয় নিবে।
ভবিষ্যতে টাকা পাব বা বিচার পাব কি না তার কোন নিশ্চয়তা দিচ্ছে না প্রশাসন, আমরা জিডি করে জিডির কপি নিয়ে প্রশাসনের বারান্দায় বারান্দায় ঘুরছি,
অ্যাপের কর্মকর্তারা বিভিন্ন বাহানা করতে থাকে, আমরা যখন অভিযোগ করি কেন পেমেন্ট দেওয়া হচ্ছে না অমাদের বলা হয় সবাই সবার এন আইডি কার্ড, জন্মনিবন্ধন, ড্রাইভিং লাইসেন্স, বা পাসপোর্টের কপি ওদের এপসে থাকা টাকা নেওয়ার পর যেভাবে স্কিনসট নিয়ে পাঠানো হত এভাবে দিতে, সরকার থেকে নাকি অডিট চলছে সরকার নাকি টাকা আটকে রেখেছে, অামাদের এসব প্রমান দিয়ে টাকা নিতে হবে, বাংলাদেশে নাকি অফিস খুলবে, সরকারকে নাকি  সব কিছু দেখাতে হবে সরকারি অনুমোদন অনুযায়ী কার্যক্রম চলবে। এভাবে টাকা ও প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস হাতিয়ে নিয়ে, টিম লিডারদেরকে ফাঁসিয়ে দিয়ে চলে গেল বিডি লাইক, তারা টিম লিডারদেরকে শুধু ব্যবহার করেছে তাদের প্লান সফল করতে। বর্তমান সময়ে টিম লিডারদের পড়তে হচ্ছে বিভিন্ন মানসিক অত্যাচার বা হুমকির মুখোমুখি করা হচ্ছে, তাদের নামেও কেইস করছে অনেকেই।অভিযোগকারীদের  দাবী প্রশাসনও তাদের এই অভিযোগের ভিত্তিতে কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না।

সংবাদটি শেয়ার করুন

One thought on "তরুন-তরুনীদের অর্থের প্রলোভন দেখিয়ে ৩০০ কোটি টাকা নিয়ে লাপাত্তা বিডিলাইক নামে একটি কোম্পানি"

  1. Abdul says:

    এই সব বিষয়ে প্রশাসন কে অনেক বার কিছু বলা হয়েছে বিভিন্ন জায়গা জেলা থানা ভিত্তিক আমরা অনেক চেস্টা করেছি কিন্তু ফল আমরা ০ পেয়েছি। বিডি লাইক চলে গেছে প্রায় ১ মাসের বেশি হয়েছে এখন অবদি শুনতে পারলাম না যে বিডি লাইকের সাথে যুক্ত চক্রের কাউ কে ধরতে পারছে। এই করোনা সময়ে বেকার গ্রস্ত মানুষের টাকা মেরে দিয়ে চলে গেছে মানুষ নামের কিছু জানোয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০-২২ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি

ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন