1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৫৩ অপরাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ

কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

জয়পুরহাটে বিধবা ভাবীকে ধর্ষণ, দেবর-নাতী গ্রেফতার

রিপোর্টার
  • আপডেটঃ সোমবার, ৪ অক্টোবর, ২০২১
  • ৩৮ বার পড়া হয়েছে

জামিরুল ইসলাম জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে আপন বড় ভাইয়ের স্ত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে দেবর ও নাতীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় শনিবার রাতে ভুক্তভোগী ওই গৃহবধূ বাদি হয়ে পাঁচবিবি থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করলে পুলিশ দেবর ও নাতীকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনা উপজেলার লকনাহার গ্রামে ঘটেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, উপজেলার লকনাহার গ্রামের মৃত খাজের আলীর ছেলে দেবর করিম হোসেন দুদু (৬০) এবং একই গ্রামের আব্দুল ওয়াহেদের ছেলে নাতী সাব্বির হোসেন (২৭) । রোববার সকালে তাদেরকে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানান পুলিশ।

মামলার বিবরণ সূত্রে জানা যায়, প্রায় দুই বছর আগে ওই গৃহবধূর স্বামী মারা যায়। স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকে ওই গৃহবধূ বাড়িতে একাই থাকতো। এরপর দেবর করিম হোসেন দুদুর সাথে ওই গৃহবধূর শাররীক সর্ম্পক গড়ে ওঠে। বর্তমানে ওই গৃহবধূ পাঁচ মাসের অন্তঃসত্বা। এ অবস্থায় দেবর দুদুকে বিবাহের কথা বললে সে সময় কালক্ষেপন করে আসছে। আবার সন্তান নষ্ট এবং তাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। এরই মধ্যে গত শনিবার রাতে দেবর করিম হোসেন দুদু তার নাতী সাব্বির হোসেনের সহযোগিতা নিয়ে ওই গৃহবধূর ঘরে ঢুকে আবারও ধর্ষণ করে। রাতেই অন্তঃসত্বা ওই গৃহবধূ সন্তানের পিতৃ পরিচয় ও জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে থানায় দেবর ও নাতীকে আসামী করে ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। মামলার পর পুলিশ রাতেই তাদেরকে বাড়ী থেকে গ্রেফতার করে।

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) পলাশ চন্দ্র দেব বলেন, এ ঘটনায় গৃহবধূ দুইজনকে আসামী করে মামলা করেছে। এরপর পুলিশ আসামীদের গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০২১ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন