1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৫৫ পূর্বাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ

কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

মোংলায় জবরদস্তি চিংড়ি ঘেরে বাঁধ

রিপোর্টার
  • আপডেটঃ রবিবার, ৭ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৭ বার পড়া হয়েছে

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধিঃ মোংলায় জোরজবরি একটি চিংড়ি ঘেরের পানি সরবরাহের বাক্স/কাটুন ভেঙ্গে তুলে ফেলে দিয়ে সেখান মাটির বাঁধ দিয়েছেন প্রতিপক্ষ ঘের মালিক। এতে ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে পড়া ঘের মালিক থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে ও ক্ষতিগ্রস্থ ঘের মালিক জানান, উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়নের কালিকাবাড়ী এলাকার বাসিন্দা বিধান ফকির (৩৬) পাশের চিলা ইউনিয়নের হলদিবুনিয়া এলাকায় ৪ বছর ধরে ৫ বিঘার একটি চিংড়ি ঘের করে আসছেন। বিধান তার ঘেরে মাছের পাশাপাশি ধানও চাষ করছেন। কিন্তু হঠাৎ করে পাশের ঘের মালিক পবিত্র ঘরামী (৩৫) লোকজন নিয়ে শুক্রবার দুপুরে বিধানের ওই ঘেরের পানি ওঠা-নামানোর কাঠের বাক্স ভেঙ্গে তুলে ফেলে দিয়ে সেখানে জবরদস্তি মাটি দিয়ে বাঁধ দিয়ে দেন। বাঁধ দেয়ার ফলে বিধান তার ঘেরে পানি তুলতে পারছেন না। ফলে ঘেরের পানি কমে মাছ মারা যাওয়াসহ ধান নষ্টের উপক্রম হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত বিধান শুক্রবার রাতে থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
বিধান বলেন, জবরদস্তিভাবে আমার জায়গার বাক্স ভেঙ্গে বাঁধ দেয়ায় ঘেরের পানি শুকিয়ে মাছ ও ধানের ক্ষতি হচ্ছে। এভাবে দুই একদিন থাকলে আমার মাছ ও ধান মরে যাবে। তারা প্রভাবশালী আমাকে প্রতিনিয়ত ভয়ভীতি ও হুমকি-ধামকি দেয়।
এ ঘটনায় পবিত্র ঘরামী বলেন, বিধান তার বাক্স দিয়ে যে পরিমাণ পানি তুলেন তাতে আমাদের ঘের তলিয়ে মাছ তার ঘেরে চলে যায়। তাকে অনেকবার বলার পরও সে এটি না শোনায় আমাদের ক্ষতি এড়াতে বাক্স তুলে বাঁধ দিয়ে দিয়েছি।
এ বিষয়ে মোংলা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মনিরুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। #

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০২১ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন