1. mohsinlectu@gmail.com : mahsin :
  2. zahiruddin554@gmail.com : Md. Zahir Uddin : Md. Zahir Uddin
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ০১:৫০ অপরাহ্ন
বিশেষ বিজ্ঞপ্তিঃ

সারাদেশ ব্যাপী করোনার টিকাদান কর্মসূচী চলছে ,সকলকে টিকা গ্রহণ করার জন্য অনুরোধ করা হল।কপোতাক্ষ নিউজে আপনাকে স্বাগতম! (খালি থাকা সাপেক্ষে) দেশের সকল বিভাগ, জেলা, উপজেলা, বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে। যোগাযোগ: ০১৭২৭-৫৬৭৯৭৬

লোহাগড়া মল্লিকপুর ইউনিয়ন পরিষদে সরকারি চাউল বেচা কেনার হাট বসেছে

রিপোর্টার
  • আপডেটঃ সোমবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৪৭ বার পড়া হয়েছে

মোঃআজিজুর বিশ্বাস,স্টাফ রিপোর্টার নড়াইলঃনড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার ৯নং মল্লিকপুর ইউনিয়ন পরিষদে মেম্বার ও ইউনিয়ন সচিবের চোখের সামনে হচ্ছে চাউল কেনা বেচা,এ যেনো কোনো হাট বাজার বসেছে চাউল কেনা বেচার ইউনিয়ন পরিষদে।

রবিবার ৫ ডিসেম্বর অনুমানিক দুপুর ১২ টার দিকে খবর পেয়ে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়,মল্লিকপুর ইউনিয়ন পরিষদের সচিব মোঃ মোজাফফর হোসেন ভূঁইয়া,ও মহিলা মেম্বার সালমা বেগম, পুরুষ মেম্বার ফাইজার,এবং নুরুজ্জামান মেম্বার ভিজিডি”র চাউল দিচ্ছিলেন।

এসময় ওখানে দেখা যায়,লোহাগড়া বাজারের চাউল ব্যবসায়ী মোঃ মশিউর রহমানের সহযোগী জুয়েল,ও লোহাগড়া বাজার কমিটির কোষাধক্ষ্য,ও খাদ্যবান্ধব এর ডিলার ইকবাল কে চাউল ভুক্তভোগী দের থেকে কিনতে,এ সময় সাংবাদিকদের উপস্থিতিটের পেয়ে ইকবাল হোসেন নিজেকে লোহাগড়া বাজার কমিটির কোষাধক্ষ্য পরিচয় দেন।এবং বলেন আমার গরুকে খাওয়ানোর জন্য কয় বস্তা চাউল কিনতে আসছি।

অপর চাউল ক্রেতা জুয়েল সাংবাদিকদের দেখে সরে চলে যান, ওই সময় স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, লোহাগড়া বাজারে চাল ব্যবসায়ী মশিউরের জন্য চাউল কেনেন জুয়েল।

ইউনিয়ন পরিষদের গোডাউনের ভিতরে গিয়ে মেম্বারদের কাছে ও সচিবের কাছে সাংবাদিকরা চাউল কেনা বেচার বিষয়ে জানতে চাইলে, তারা বলেন কিছু পরিবার এই চাউল খায় না,তাই তাদের থেকে ওরা ওই চাউল কিনে নিয়ে বাজারে বিক্রয় করেন।এবং অনেকেই খাওয়ার জন্য কিনে নেন।

অপরদিকে ওইখানের অসংখ্য নারী-পুরুষ ভিজিডি কার্ডধারী চাউল ভুক্তভোগীরা সাংবাদিকদের বলেন,সরকারিভাবে আমাদের যে চাউল গুলো পাই,এই চালগুলো খাওয়ার উপযোগী নয়,আপনারা দেখেন চাউল থেকে গন্ধ বের হচ্ছে, একটু ভালো চাউল দেওয়ার জন্য মাননীয় এমপি মহোদয় কে বিষয়টা নজরে আনার জন্য অনুরোধ করেন।

এসময় ইকবাল নামে একজন ভদ্রলোক বলেন সত্যি যে চাউল গুলো এখানে দেওয়া হয়, এই চাউল গুলো পঁচা খাওয়ার উপযোগী নয়। তিনি তার বক্তব্যে বলেন মাননীয় এমপি মহোদয়কে বিষয়টি তার নজরে আনার জন্য।এ সময় তিনি আরো বলেন সোহেলী অটো রাইস মিলের থেকে এই চাউল গুলো প্রায় বার দিয়ে থাকেন,আমি খাদ্য অধিদপ্তর অফিসে জানিয়েছি এই বিষয়ে, কিছু নারীরা জানান চাউল গুলো আসলেই খাওয়ার উপযোগী নয়।

চাউল কেনা বেচার বিষয় ইউনিয়ন সচিবের কাছে জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের কোনো উত্তর দিতে পারেন নাই।এ বিষয়ে লোহাগড়া উপজেলার খাদ্য নিয়ন্ত্রক এর অফিসার মোঃ মান্নান আলী কে জানানো হলে, তিনি সোহেলী অটো রাইস মিলের মালিক সহ নিজে মল্লিকপুর ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে ওই চাউল গুলো দেখেন,এবং বলেন যে চাউল গুলা দেওয়া হয়েছে তার মধ্যে সাদা যে চাউল গুলা রয়েছে, সে গুলা পুষ্টিকর চাউল, মাঝে মাঝে হয়তো একটু সমস্যা হতে পারে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ
© ২০২১ কপোতাক্ষ নিউজ । এই ওয়েবসাইটের কোনো কন্টেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
ডেভলপমেন্ট এন্ড মেইনটেন্যান্স: মোঃ জহির উদ্দীন